বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সিং সাইট

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

Rate this post

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে জানার পর অধিকাংশ মানুষ একটা জিনিসের উত্তর খুঁজতে থাকেন আর তা হল এই যে ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়। এর কারণ হল অনেক অনেক কাজের মাঝে আপনাকে একটা কাজ খুঁজে বের করতে হবে যেটার প্রতি আপনার ঝোঁক রয়েছে।

এমন কোন ফ্রিল্যান্সিং কাজ বেছে নেওয়া যাবে না যেটা আপনার কাছে বোরিং লাগে, কিন্তু শুধুমাত্র চাহিদা বেশি আছে বিধায় করছেন। তাই সবসময় মনে রাখতে হবে যে ফলো ইয়োর হার্ট অর্থাৎ মন থেকে যেটা ভালো লাগবে সেটা করলেই ভাল ফল পাবেন।

ইমেইল কিভাবে খুলবো

যাই হোক আর কথা না বাড়িয়ে মূল প্রসঙ্গে চলে যাই অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্রসমূহ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করি।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

নিচে আমি একে একে বিভিন্ন ধরণের কাজের কথা উল্লেখ করে তার বিস্তারিত জানাচ্ছি।

ডিজাইনিং

ডিজাইনিং বা নকশা করা হল ফ্রিল্যান্সিং এর অন্যাতম জনপ্রিয় ও চাহিদাসম্পন্ন একটি কাজ। আপনি আপনার আশেপাঁশে যতকিছু দেখেন না কেন সেটায় বিভিন্ন ডিজাইন করা থাকে, একটা কোম্পানির দিকে তাকালে তাদের থাকে লোগো।

একটা রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাবার মেনু দেখার সময় দেখবেন যে খাবার এর ছবি দিয়ে বিভিন্নভাবে তা ডিজাইন করা। তাই বিশ্বব্যাপী ডিজাইন করার কাজের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে আর তা দিনে দিনে বাড়ছে কারণ দিনে দিনে ব্যবসার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। আর যত ব্যবসা বাড়ছে ততো নিত্যনতুন ডিজাইন করারও প্রয়োজন পড়ছে, কিন্তু একজনকে আলাদাভাবে ডিজাইনিং এর জন্য রাখা সব ব্যবসার জন্য লাভজনক নয়। তাই প্রয়োজন পড়ে সাময়িকভাবে কাউকে হায়ার করে ডিজাইনিং এর কাজটি করিয়ে নেওয়ার।

এই দেখেন এখানে একটি ব্রোশার ডিজাইনিং এর কাজ দেখতে পাচ্ছেন যেটা আমি একটি ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্ম থেকে নিয়েছি। এখানে একটি ডিজাইনিং এর জন্য ক্লায়েন্ট বাজেট রেখেছে ১০৭ ডলার।

অনেক ধরণের ডিজাইনিং এর কাজ রয়েছে যার মধ্যে রয়েছে লোগো, পোস্টার, ব্যানার, লিফলেট, ফ্লায়ার, ব্রোশার, ইনফোগ্রাফিক, প্রেজেন্টেশন ডিজাইন ইত্যাদি ইত্যাদি।

ছোটবেলা থেকে আমার ডিজাইনিং এর প্রতি আকর্ষণ থাকার কারণে আমি অনলাইনে আমি বেশকিছু ডিজাইনও করেছি তবে সেটা প্রফেশনালি নেইনি কারণ ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যান্য কাজগুলো আমার কাছে বেশি মনে ধরেছিল।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই অনলাইন চেক apps এখানে পাবেন।

রাইটিং বা লেখালেখি

অনলাইনে বিভিন্ন ধরণের কাজের ক্ষেত্রে টেক্সট সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে কারণ আমরা এর মাধ্যমেই ওয়েব কন্টেন্ট তৈরি করে থাকি। বর্তমানে যদিও ভিডিও ও আরো অনেক ধরণের ওয়েব কন্টেন্ট তৈরি হচ্ছে তথাপি এসবের স্ক্রিপ্ট তৈরির জন্য সেই মৌলিক লেখার পেছনেই ক্লায়েন্টদের ছুটতে হয়।

আপনি কোন একটা তথ্য ইন্টারনেট থেকে পেতে চাচ্ছেন তখন আপনি কি করেন? গুগল করে তা সম্পর্কে জানতে চান আর তখন হাজার হাজার আর্টিকেল আপনার সামনে হাজির হয় যার অধিকাংশই বিভিন্ন লেখালেখি।

এজন্য অনলাইন লেখালেখির কাজ দিনে দিনে বেড়েই চলেছে কারণ নতুন নতুন ওয়েবসাইট ও ব্লগ তৈরি হচ্ছে প্রতিনিয়তই। তাই আপনি যদি একজন ফ্রিল্যান্স রাইটার হিসেবে আত্নপ্রকাশ করতে চান তাহলে কাজের অভাব হবে না যদি তা ভালভাবে করতে পারেন।

লেখালেখির জন্য আপনাকে যে খুব বেশি সৃজনশীল হতে হবে তা কিন্তু নয় তবে যে বিষয় সম্পর্কে ভাল জানেন তার ওপর লেখালেখি করলে তার মানও ভাল হবে এবং আপনি এটি করে বোরিং ও হবেন না।

ক্লায়েন্ট যে বিষয়ের ওপর আপনাকে লিখতে দেবে তা সম্পর্কে অনলাইনে আগে থেকেই অনেক অনেক আর্টিকেল পাবেন যেখান থেকে আপনি ভাল্ভাবে রিসার্চ করে তারপর আপনার লেখা লিখতে পারবেন। এজন্য যথেষ্ট স্পেইস পাচ্ছেন।

তবে মনে রাখবেন অন্যদের লেখা কপি করা যাবে না। কপি করেছেন তো মরেছেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই কপি bangladesh – জন্ম নিবন্ধন যাচাই অনলাইন

নিচে বেশকিছু রাইটিং এর কাজের উদাহরণ দিলামঃ

১। আর্টিকেল ও ব্লগ পোস্ট রাইটিং
২। ক্রিয়েটিভ রাইটিং
৩। একাডেমিক রাইটিং
৪। ওয়েবসাইট কনটেন্ট রাইটিং
৫। টেকনিক্যাল রাইটিং
৬। সিভি ও কভার লেটার রাইটিং
৭। গ্রান্ট রাইটিং
৮। কপিরাইটিং
৯। বিজনেস প্লান রাইটিং ইত্যাদি

আমি অনলাইনে লেখালেখির কাজ দিয়েই প্রথম ফ্রিল্যান্সিং কাজ শুরু করেছিলাম। আসলে লেখালেখি করতে আমার ভাল লাগতো। এখানে আপনাকে একটু খেয়াল রাখতে হবে যে রাইটিং এর অধিকাংশ কাজ কিন্তু হয় ইংলিশ ভাষায় তাই ইংলিশে কিছুটা দখল না থাকলে এ কাজের দিকে না যাওয়াটাই ভাল।

SEO এবং অন্যান্য ডিজিটাল মার্কেটিং

এসইও বা সার্চ এঞ্জিন অপটিমাইজেশন আগা-গোড়াই একটি অপরিহার্য বিষয়। অনলাইনে কোন লেখা বা ভিডিও অডিয়েন্স এর সামনে এমনি এমনি পৌঁছাবে না বরং এর পেছনে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়। অর্থাৎ অনেক পরিশ্রম করে তা গুগল এর প্রথম পাতায় র‍্যাংক করাতে হয়। আর একেই বলে এসইও।

বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সিং সাইট
বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সিং সাইট

ফ্রিল্যান্সিং কোন কাজের চাহিদা বেশি, ফ্রিল্যান্সিং কত প্রকার, ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ কিভাবে করতে হয়, ফ্রিল্যান্সিং এর সহজ কাজ, নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং, ফ্রিল্যান্সিং এর টাকা কিভাবে তুলতে হয়, ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য কিসের প্রয়োজন, ফ্রিল্যান্সিং কি মোবাইলে করা যায়,

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *