ফুটবল খেলার জন্ম কোন দেশে

ফুটবল খেলার জন্ম কোন দেশে – উত্তর জানুন

Rate this post

ফুটবল খেলার জন্ম হয় কোন দেশে?

ফুটবল খেলা ১৮৬৩ সালে ইংল্যান্ডে আবিষ্কার হয়! আধুনিক ফুটবলের উদ্ভব হয় ইংল্যান্ডে। যদিও চীন, গ্রিস, রোম ইত্যাদি দেশে ফুটবল সদৃশ্য খেলার অস্থিত্ব প্রায় ২০০০ বছর আগে পর্যন্ত পাওয়া যায়।

ফুটবল খেলার জন্ম কোন দেশে

ফুটবল খেলার জন্ম কোন দেশে  এই ফুটবল খেলা সর্বপ্রথম শুরু হয়েছিল ৩৫০ খ্রিস্টাব্দের দিকে। আর জনপ্রিয় এই ফুটবল খেলা সর্ব প্রথম আরম্ভ করেছিল প্রাচীন ইতিহাসের রোমান সভ্যতা এবং গ্রিক সভ্যতার সময়ে বসবাস করা মানুষেরা। তবে আজকের দিনে আমরা যেমন ফুটবল দেখতে পাই। প্রাচীন ইতিহাসের সময় এরকম ফুটবল ছিলো না। অনেক সময় তারা সমতল কোন বেলুন আকারের চামড়ার থলের মধ্যে হাওয়া ঢুকিয়ে। সেটা বলের মতো তৈরি করে ফুটবল খেলত। তবে বর্তমান সময়ের আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা। অর্থাৎ ফিফা প্রথম দিকে প্রাচীন গ্রীক এর Episkyros নামক একটি খেলা কে ফুটবলের আদি রূপ হিসেবে উল্লেখ করেছিল। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তারা এই সিদ্ধান্তের পরিবর্তন নিয়ে আসে। এবং তারা পরের বার চীনের Cuju নামক একটি খেলা কে ফুটবল এর প্রথম রূপ হিসেবে প্রকাশ করে।

ফুটবল খেলার জন্ম কোন দেশে
ফুটবল খেলার জন্ম কোন দেশে

এটাও পরুন: কাকে ‘ফুটবলের রাজা’ বলা হয়

প্রথম বিশ্বকাপ ফুটবল কোথায় অনুষ্ঠিত হয় আর কোন দেশ চ্যাম্পিয়ান ও কোন দেশ রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে?

বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে ধারনা করা যায় ফুটবল খেলা প্রথম শুরু করেছিল গ্রিক এবং রোমান সম্প্রদায় খ্রিস্টপূর্ব ৩৫০ সালের দিকে। প্রাচীন গ্রিক এবং রোমানরা বল দিয়ে বিভিন্ন রকমের খেলা খেলত, তার মধ্যে কিছু কিছু খেলা পা ব্যবহার করে খেলত। রোমান খেলা Harpastum এসেছে গ্রিক খেলা Episkyros থেকে যা গ্রিক নাট্যকার Antiphanes (388–311 BC) এবং পরে ক্রিস্টিয়ান দার্শনিক Clement of Alexandria তাদের বিভিন্ন লেখায় উল্লেখ করেছেন।এই খেলাটা রাগবি ফুটবল খেলার মত ছিল।রোমান রাজনীতিবিদ Cicero (106–43 BC) বর্ণনা করেছেন ঐ খেলার সময় একজন মানুষ নাপিতের দোকানে সেভ হওয়ার সময় বলের আঘাতে মারা গিয়েছিলেন।ঐ বল গুলো বাতাস দ্বারা পূর্ণ থাকত অনেকটা বেলুনের মত। ১৯৩০ সালে প্রথম ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম বিশ্বকাপের প্রথম দুটি ম্যাচ একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয় যাতে অংশ নেয় ফ্রান্স ও মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র ও বেলজিয়াম। ফ্রান্স ৪-১ এবং যুক্তরাষ্ট্র ৩-০ ব্যবধানে এতে জয়ী হয়। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম গোল করেন ফ্রান্সের লুসিয়েন লরেন্ত।ফাইনালে ৯৩,০০০ দর্শকের সামনে উরুগুয়ে আর্জেন্টিনাকে ৪-২ ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের গৌরব লাভ করে। এর ফলেই উরুগুয়ে চ্যাম্পিয়ন এবং রানার আপ আর্জেন্টিনা।
ফুটবল খেলার জন্ম প্রায় ২৫০০ বছর আগে চীনের যুদ্ধমান রাজ্য সমূহের যুগে, এ সময়টি কমপক্ষে আধুনিক ফুটবলের জন্মস্থান ব্রিটেনের চেয়ে এক হাজারাধিক বছর পুরনো। বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে ধারনা করা যায় ফুটবল খেলা প্রথম শুরু করেছিল গ্রিক এবং রোমান সম্প্রদায় খ্রিস্টপূর্ব ৩৫০ সালের দিকে। প্রাচীন গ্রিক এবং রোমানরা বল দিয়ে বিভিন্ন রকমের খেলা খেলত। তার মধ্যে কিছু কিছু খেলা পা ব্যবহার করে খেলত। রোমান খেলা Harpastum এসেছে গ্রিক খেলা Episkyros থেকে যা গ্রিক নাট্যকার Antiphanes এবং পরে ক্রিস্টিয়ান দার্শনিক Clement of Alexandria তাদের বিভিন্ন লেখায় উল্লেখ করেছেন – এই খেলাটা রাগবি ফুটবল খেলার মত ছিল। কোন কোন ঐতিহাসিক মনে করেন, মিশরের কিছু প্রার্থনা অনুষ্ঠান সম্ভবত ফুটবল খেলার উত্সের অন্যতম। প্রাচীন মিশরের প্রাচীরের চিত্রাঙ্কনে বল খেলার নানান রকমের কৌশল বর্ণনা করা হয়েছে। ব্রিটেন হচ্ছে আধুনিক ফুটবল খেলার প্রতিষ্ঠাতা এবং ফুটবল খেলাকে প্রতিযোগিতা পর্যায়ে উন্নীত করেছে। উল্লেখ্য যে, ১৪ শতাব্দীর আগে ফুটবল কেবল ব্রিটিশদের বিনোদনের খেলা ছিলো। ১৮৬৩ সালে কেউ কেউ ফুটবলের নিয়মাবলী নির্ধারন করার প্রস্তাব করেছেন, বহু বার আলোচনার পর অবশেষে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে, ফুটবল কেবল পা দিয়ে খেলা যাবে, রাগবি কেবল হাত দিয়ে খেলা যাবে। ১৮৬৩ সালে বিশ্বের প্রথম ফুটবল এসোসিয়েশন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, এই সংস্থার প্রতিষ্ঠা ফুটবল খেলার উন্নয়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব সৃষ্টি করেছে। ১৮৮৬ সালে ব্রিটিশ ফুটবল আনুষ্ঠানিক ক্রিড়ায় পরিণত হয়েছে। ১৯৩০ সালে প্রথম ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম বিশ্বকাপের প্রথম দুটি ম্যাচ একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয় যাতে অংশ নেয় ফ্রান্স ও মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র ও বেলজিয়াম। ফ্রান্স ৪-১ এবং যুক্তরাষ্ট্র ৩-০ ব্যবধানে এতে জয়ী হয়। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম গোল করেন ফ্রান্সের লুসিয়েন লরেন্ত।ফাইনালে ৯৩,০০০ দর্শকের সামনে উরুগুয়ে আর্জেন্টিনাকে ৪-২ ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের গৌরব লাভ করে। এর ফলেই উরুগুয়ে চ্যাম্পিয়ন এবং রানার আপ আর্জেন্টিনা।

গুগল নিউজ ফলো করে রাখুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *