nid card download bd

Rate this post

nid card download bd

nid card download bd এই পোস্টে খুব সংক্ষেপে সহজভাবে অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার উপায় দেয়া হল। এই পদ্ধতিতে অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন। নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখব – এই প্রশ্ন যারা করছেন তারা এই পদ্ধতিতে এনআইডি অনলাইন কপি পাবেন, যা বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যাবে। (বিশেষ দ্রষ্টব্য এবং ডিসক্লেইমারঃ আমরা এই পোস্টটি যথাসম্ভব আপডেট রাখার চেষ্টা করি। নির্বাচন কমিশন অথবা জাতীয় পরিচয়পত্রের অনলাইন সার্ভিস কর্তৃপক্ষ তাদের অনলাইন সেবা পদ্ধতিতে যেকোনো সময় পরিবর্তন আনতে পারেন। তাই আপনি যদি এই পোস্টে দেওয়া নিয়ম অনুসরণ করে সফল না হন তাহলে NID হেল্পলাইন ১০৫ নম্বরে কল করুন।)

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করন

যারা ভোটার হওয়ার জন্য ছবি তুলেছেন কিন্তু এনআইডি পাননি, তারা ভোটার নিবন্ধন ফরমের স্লিপ নম্বর ব্যবহার করে এনআইডি কার্ডের অনলাইন কপি সংগ্রহ করতে পারেন। অথবা আপনি যদি এনআইডি কার্ড হারিয়ে থাকেন, কিন্তু এনআইডি নম্বরটি যদি কোথাও লেখা থাকে তাহলেও আপনি এই পদ্ধতিতে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার চেষ্টা করতে পারেন। সফল হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

Google News

অনলাইনে NID ডাউনলোড করার উপায়

  • অনলাইন রেজিস্ট্রেশন

প্রথমেই জানুন কারা NID অনলাইন সেবার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করতে পারবেন। যারা জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়েছেন তারা সংশোধন অথবা ডুপ্লিকেট কপির জন্য আবেদন করতে পারবেন। যারা ইতিমধ্যে নিবন্ধন করেছেন কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি পান নি, তারা অ্যাকাউন্ট রেজিস্টার করে ডাউনলোড অপশন থেকে জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি সংগ্রহ করতে পারবেন। যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই তারা নতুন ভোটার নিবন্ধনের জন্য আলাদা পেজ থেকে অন্যভাবে আবেদন করতে পারবেন।

অর্থাৎ আপনি ভোটার হয়ে থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করে অনলাইনে NID ডাউনলোড করার সুবিধা নিতে পারবেন। এছাড়া আপনি যদি ভোটার হওয়ার জন্য ইতোমধ্যে ফরম পূরণ করে ছবি তুলে থাকেন কিন্তু এনআইডি কার্ড এখনও পাননি সেক্ষেত্রেও এই সেবার মাধ্যমে অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন।

এই পেজে জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার অর্থাৎ এনআইডি কার্ডের নাম্বার প্রদান করুন। যাদের কাছে এনআইডি কার্ড আছে, তারা সেখান থেকে দেখে নম্বরটি লিখুন। আর যারা এখনো এনআইডি কার্ড পাননি, তারা জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বরের বদলে ফর্ম নম্বর প্রদান করুন। এনআইডি কার্ড করার সময় যে তথ্য দিয়েছেন সে অনুযায়ী জন্মতারিখ লিখুন। ভেরিফিকেশন ক্যাপচা পূরণ করে সাবমিট এ ক্লিক করুন।

এরপর একটি নতুন ফর্ম আসবে। সেখান থেকে যথাযথভাবে আপনার বর্তমান ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানার তথ্য প্রদান করুন।

  • এনআইডি লগইন – NID Login

রেজিস্ট্রেশন হলে লগইন করার জন্য নিচের দিকে স্ক্রল করে নিম্নে প্রদর্শিত পেজের ন্যায় একটি পেজ দেখতে পাবেন।

আপনার লগইন তথ্য এবং ক্যাপচা পূরণ করে লগইন বাটনে ক্লিক করুন। এবার মোবাইলে মেসেজে একটি সিক্যুরিটি কোড আসবে। অবশ্য আপনি চাইলে ইমেইলেও কোডটি নিতে পারেন। লগইন করলে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের বিভিন্ন তথ্য দেখতে পাবেন।

  • NID ডাউনলোড – এনআইডি কপি ডাউনলোড

এবার জাতীয় পরিচয়পত্রের সফট কপি ডাউনলোড করতে ডানদিকে নীচে থাকা ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করুন। মোবাইলে হলে স্ক্রল করে নিচের দিকে গেলে ডাউনলোড অপশন পাবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২২

অনলাইন NID ফাইলটি প্রিন্ট করে আপনি আপাতত অন্তত কিছু কিছু ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্রের কাজ চালাতে পারবেন।

আপনি যদি ইতোমধ্যে NID কার্ড পেয়ে থাকেন তারপরেও যদি অনলাইনে কার্ডটি ডাউনলোড করতে চান তাহলে নিন্মের ধাপসমূহ অনুসরণ করতে হবেঃ

  • ১ এ প্রদত্ত নিয়ম অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী পূরণ করে নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন
  • আপনার কার্ডের তথ্য ও মোবাইলে প্রাপ্ত এক্টিভেশন কোড প্রদান করুন
  • আপনার মোবাইলে এনআইডি ওয়ালেট অ্যাপটি ডাউনলোড করুন এবং মুখমণ্ডল যাচাই (Face Verification) করে আপনার প্রোফাইলে লগইন করুন
  • এরপর আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করুন
  • যেকোনো তথ্য জানতে কল করুন ১০৫ নম্বরে।

NID ডাউনলোড – বিকল্প উপায়

যদি অনলাইনে জাতীয় পরিয়পত্রের সাইটে নিবন্ধন কিংবা লগইন করে NID ডাউনলোড করতে না পারেন, তাহলে আপনার মোবাইল থেকে 105 নম্বরে কল করুন। সেখানে একজন দায়িত্বরত অফিসারের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করে ফোনে মেসেজের মাধ্যমে আপনার এনআইডি কার্ড অনলাইন কপি বা জাতীয় পরিচয়পত্রের অনলাইন কপি ডাউনলোডের লিংক পাবেন। সেই লিঙ্কে ক্লিক করুন। আপনার এনআইডির অনলাইন কপি পাবেন। সেখান থেকে ডকুমেন্টটি সেইভ করে প্রিন্ট করে নিলেই হবে।

অনলাইনে নতুন ভোটার আইডি কার্ড এর জন্য আবেদন করার নিয়ম – How To Apply for New ID Card

১৮ বছরের উর্দ্ধে বাংলাদেশের বাসিন্দা হলে ন্যাশনাল আইডি কার্ড অর্থাৎ ভোটার আইডি কার্ড এর জন্য আবেদন করা যাবে। অনলাইন নতুন ভোটার আইডি কার্ড এর জন্য আবেদন করতে এই লিংকে ক্লিক করুন।

NID Download

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন সংক্রান্ত তথ্য

১। প্রশ্নঃ কার্ডের তথ্য কিভাবে সংশোধন করা যায়?
উত্তরঃ এনআইডি রেজিস্ট্রেশন উইং/উপজেলা/থানা/জেলা নির্বাচন অফিসে ভুল তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে। সংশোধনের পক্ষে পর্যাপ্ত উপযুক্ত দলিলাদি আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

২। প্রশ্নঃ কার্ডে কোন সংশোধন করা হলে তার কি কোন রেকর্ড রাখা হবে?
উত্তরঃ সকল সংশোধনের রেকর্ড সেন্ট্রাল ডাটাবেজে সংরক্ষিত থাকে।

৩। প্রশ্নঃ ভুলক্রমে পিতা/স্বামী/মাতাকে মৃত হিসেবে উল্লেখ করা হলে সংশোধনের জন্য কি কি সনদ দাখিল করতে হবে?
উত্তরঃ জীবিত পিতা/স্বামী/মাতাকে ভুলক্রমে মৃত হিসেবে উল্লেখ করার কারণে পরিচয়পত্র সংশোধন করতে হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির পরিচয়পত্র দাখিল করতে হবে।

৪। প্রশ্নঃ আমি অবিবাহিত। আমার কার্ডে পিতা না লিখে স্বামী লেখা হয়েছে। কিভাবে তা সংশোধন করা যাবে?
উত্তরঃ সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা/জেলা নির্বাচন অফিসে আপনি বিবাহিত নন মর্মে প্রমাণাদিসহ আবেদন করতে হবে।

৫। প্রশ্নঃ বিয়ের পর স্বামীর নাম সংযোজনের প্রক্রিয়া কি?
উত্তরঃ নিকাহনামা ও স্বামীর আইডি কার্ড এর ফটোকপি সংযুক্ত করে NID Registration Wing/ সংশ্লিষ্ট উপজেলা/ থানা/ জেলা নির্বাচন অফিস বরাবর আবেদন করতে হবে।

৬। প্রশ্নঃ বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। এখন ID Card থেকে স্বামীর নাম বিভাবে বাদ দিতে হবে?
উত্তরঃ বিবাহ বিচ্ছেদ সংক্রান্ত দলিল (তালাকনামা) সংযুক্ত করে NID Registration Wing/সংশ্লিষ্ট উপজেলা/ থানা/ জেলা নির্বাচন অফিসে আবেদন করতে হবে।

৭। প্রশ্নঃ বিবাহ বিচ্ছেদের পর নতুন বিবাহ করেছি এখন আগের স্বামীর নামের স্থলে বর্তমান স্বামীর নাম কিভাবে সংযুক্ত করতে পারি?skitto sim price

উত্তরঃ প্রথম বিবাহ বিচ্ছেদের তালাকনামা ও পরবর্তী বিয়ে কাবিননামাসহ সংশোধন ফর্ম পূরণ করে আবেদন করতে হবে।

৮। প্রশ্নঃ আমি আমার পেশা পরিবর্তন করতে চাই কিন্তু কিভাবে করতে পারি?

nid card download bd
nid card download bd

উত্তরঃ এনআইডি রেজিস্ট্রেশন উইং/উপজেলা/জেলা নির্বাচন অফিসে প্রামাণিক কাগজপত্র দাখিল করতে হবে। উলেখ্য, আইডি কার্ডে এ তথ্য মুদ্রণ করা হয় না।

৯। প্রশ্নঃ আমার ID Card এর ছবি অস্পষ্ট, ছবি পরিবর্তন করতে হলে কি করা দরকার?
উত্তরঃ এক্ষেত্রে নিজে সরাসরি উপস্থিত হয়ে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগে আবেদন করতে হবে।

১০। প্রশ্নঃ নিজ/পিতা/স্বামী/মাতার নামের বানান সংশোধন করতে আবেদনের সাথে কি কি দলিল জমা দিতে হবে?
উত্তরঃ এসএসসি/সমমান সনদ, জন্ম সনদ, পাসপোর্ট, নাগরিকত্ব সদন, চাকুরীর প্রমাণপত্র, নিকাহ্‌নামা, পিতা/স্বামী/মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *