ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি

ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি ? এই প্রশ্নের উত্তর!

5/5 - (1 vote)

ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি

ইসলামের ভিত্তি কয়টি এই প্রশ্নের উত্তর হলো ইসলামের ভিত্তি মোট পাঁচটি। কালেমা, নামাজ, রোজা, হজ্ব, যাকাত। কালেমা অর্থাৎ লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ্- অর্থ: আল্লাহ্ ছাড়া কোনো ইলাহ্ নেই এবং হযরত মুহাম্মদ (সা:) আল্লাহর রাসূল। ইসলাম ধর্মে আসতে হলে বা মুসলমান হতে হলে আপনাকে সর্বপ্রথম কালেমার উপর বিশ্বাসী হতে হবে। এমনকি ইমানের মূল ভিত্তি হলো কালেমার উপর বিশ্বাস।

ইসলামের ইতিহাস

ইসলামের ইতিহাস হল, ইসলাম ধর্মের উদ্ভব, প্রচার এবং প্রসারের ইতিহাস। ইসলাম একটি ধর্ম যা আরব উপখণ্ডে প্রথম প্রকাশ পায় এবং তার প্রবর্তক হলেন সর্বশেষ নবী এবং রাসূল হযরত মুহাম্মাদ (সা:)।

ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি
ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি

See: ইসলামিক টিপস

ইসলামের ইতিহাস তিনটি পর্বে বিভক্ত হয়:

১। প্রথম পর্ব (৬১০ – ৬৩৫)

ইসলাম প্রকাশ এবং আদিপ্রারম্ভ। প্রথম পর্বে ইসলাম প্রসার পেতে শুরু হয়। এই পর্বের প্রধান উপকরণ হল হযরত মুহাম্মাদ (সা:) এর জীবন ও কার্যকলাপ।

২। দ্বিতীয় পর্ব (৬৩৫ – ১০০০)

ইসলামের প্রসার এবং ধর্মনির্মাণ। দ্বিতীয় পর্বে ইসলাম আরব উপখণ্ড ছেড়ে গোটা বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় হয়ে উঠে। এই সময়ে ইসলাম ধর্মের আদর্শ ও ধর্মনির্মাণ সম্পর্কে নির্দিষ্ট হয়। গোটা বিশ্বের মাঝে একটি ইসলামী সাম্রাজ্য গঠিত হয়।

৩। তৃতীয় পর্ব (১০০০ – বর্তমান)

এই পর্বে ইসলামের উন্নয়ন এবং বিকাশ। তৃতীয় পর্বে ইসলামের উন্নয়ন এবং বিকাশ এর কিছু উল্লেখযোগ্য পরিষেবা নিম্নরূপ:

i) আরব বিজয় ও আল-আনদালুস সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা
আরব থেকে গোটা পৃথিবীতে ইসলাম প্রসারের সাথে সাথে তারা একটি ইসলামী সাম্রাজ্য হিসেবে সংগঠিত হয়। এছাড়াও এইসময় আল-আনদালুস নামে একটি ইসলামী সাম্রাজ্য গোটা পৃথিবীর মধ্যে সুপ্রতিষ্ঠিত হয়। এই সাম্রাজ্যে ইসলামি সংস্কৃতি এবং ইসলামিক কার্যকলাপের ব্যাপক উন্নয়ন ঘটে।

ii) ইসলামে বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়ন
তৃতীয় পর্বে ইসলামী বিজ্ঞান এবং তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়ন উল্লেখযোগ্য ভাবে হয়েছে। এটি গোটা বিশ্বব্যাপী বৈজ্ঞানিক ও তথ্য প্রযুক্তির কেন্দ্র হিসেবে গঠিত হয়। আল-খুয়লদী নামে একজন বিখ্যাত বিজ্ঞানী এবং তথ্যবিদ এই যুগে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করেছে।

iii) সামাজিক ও আর্থিক উন্নয়ন
তৃতীয় পর্বে ইসলাম সামাজিক ও আর্থিক ভাবে উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখযোগ্য ভাবে। ইসলামের সমাজতন্ত্র ও আর্থিক ব্যবস্থার উন্নয়নে আল-জাহিজ, আল-মাওয়াক্কি, আল-বুখারী এবং আন-নাসাঈ এমন অনেক বিখ্যাত ব্যক্তি অনেক ভূমিকা পালন করেন।

ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি

ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি এই প্রশ্নের উত্তর হলো ইসলামের মৌলিক বিষয় হলো পাঁচটি। নিচে ইসলামের মৌলিক বিষয়গুলি দেয়া হলো।
কালেমা অর্থাৎ আল্লাহ্ তা’আলা এক তার কোনো ইলাহ্ নেই এবং হযরত মুহাম্মদ (সা:) আল্লাহর রাসূল এটি ঘোষনা দেয়া।
নামাজ আদায় করা, নিয়মিত প্রতিদিন পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ আদায় করা।
সিয়াম বা রোজা, রমজান মাসে ৩০ টিই রোজা আল্লাহকে খুশি করার উদ্দেশ্যে পালন করা।
হজ্ব, যাদের উপর হজ্ব ফরজ হয়েছে তাদের সকলকে হজ্ব পালন করতে হবে।
যাকাত, যাকাতের নিসাব পরিমান সম্পদ থাকলে অবশ্যই যাকাত আদায় করতে হবে।
আশা করি ইসলামের মৌলিক বিষয় কয়টি তা জানতে পেরেছেন।

ইসলামের প্রথম খলিফার নাম কি

প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) এর মৃত্যুর পরে মুসলিম বিশ্বের দায়িত্বভার পান খলিফারা। ইসলামে মোট চারজন খলিফা রয়েছে যারা নবীজী (সা:) এর দেখানো পথে থেকে সুনিপুণ ভাবে গোটা বিশ্ব শাসন করেছিলেন। চারজন খলিফারা হলেন হযরত আবু বকর (রা:), হযরত উমর ফারুক (রা), হযরত আলী (রা:) এবং হযরত উসমান (রা:)। তারা সবাই গোটা বিশ্বের কাছে উদাহারন হিসেবে থেকে যাবেন সুনিপুণ দক্ষতায় রাষ্ট্র পরিচালনাকারী হিসেবে। ইসলামের প্রথম খলিফার নাম কি এই প্রশ্নের উত্তর হলো ইসলামোে প্রথম খলিফার নাম হলো হযরত আবু বকর (রা:)। তিনি শুধু ইসলামের প্রথম খলিফায় ছিলেন না বরং নবীজি (সা:) এর খুব কাছে একজন সঙ্গি হিসেবে তার নাম পাওয়া যায় এবং তিনি নবীজি (সা:) এর শশুর ছিলেন।

ইসলামের প্রথম মুয়াজ্জিন কে

ইসলামের প্রথম মুয়াজ্জিন কে এই প্রশ্নটির উত্তর হচ্ছে ইসলামের প্রথম মুয়াজ্জিন হলেন বিলাল (রা:)। বিলাল (রা:) ছিলেন সেইসময়ের সবচেয়ে কুৎসিত চেহারার একজন মানুষ। তবে ইমানের দিক থেকে তিনি সবচেয়ে সুন্দর একজন মানুষ ছিলেন এবং তার কন্ঠ ছিলো অনেক সুন্দর। অনরক বর্ণনাতে এসেছে নামাজের জন্য মানুষকে কিভাবে মসজিদে ঢাকা যায় কেউ সঠিকভাবে বলতে পারছিলোনা। একেকজন একেক উপায় বলছিলো তবে হযরত মুহাম্মদ (সা:) এর কাছে কোনোটিই পছন্দ হচ্ছিলোনা। এদিকে বিলাল (রা:) কয়েকবার স্বপ্নে দেখেন তিনি এই আজান দিচ্ছেন এবং আজান সকলকে শুনাইলেন এবং সবার পছন্দ হয়ে যায় এবং তাকে আজান দিয়ে নামাজে সবাইকে ডাকার দায়িত্ব দেয়া হয় অর্থাৎ ইসলামের প্রথম মুয়াজ্জিন হিসেবে বিলাল (রা:) কে নির্বাচন করা হয়।

হাদিসে এসেছে হযরত মুহাম্মদ (সা:) মেরাজের ঘটনা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন যে আমি যখন মেরাজে ছিলাম তখন জান্নাতে আমার বিলালকে দেখেছি।

গুগল নিউজ ফলো করুন 

ইসলামের ৪ খলিফার নাম

হযরত মুহাম্মদ (সা:) মারা যাওয়ার পরে মুসলিম বিশ্ব নেতাশুন্য হয়ে পড়ে এবং এখান থেকে খলিফা শাসনের শুরু হয়। ইসলামের প্রথম খলিফার নাম হযরত আবু বকর (রা:) এছাড়াও ইসলামে আরো ৩ খলিফা অর্থাৎ মোট ৪ খলিফা রাষ্ট্র পরিচানার দায়িত্ব গ্রহন করেন। ইসলামের ৪ খলিফার নাম হলো হযরত আবু বকর (রা:), হযরত উমর ফারুক (রা:), হযরত উসমান (রা:) এবং হযরত আলী (রা:)। এদের মাঝে হযরদ আবু বকর (রা:) ছিলেন আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) শশুর এবং হযরত আলী ছিলেন নবীজি (সা:) এর জামাতা।

ইসলামের ইতিহাস অনেক বীরত্ব গাথা ইতিহাস যখন গোটা বিশ্ব পাপাচারের অন্ধকারে পড়ে গেছিলো ঠিক সেই সময় হযরত মুহাম্মদ (সা:) এর মাধ্যমে সমাজের পাপাচার দূর করেন

সংগ্রহ: অনলাইন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *